• ঢাকা
  • বুধবার, ২৯ জুন, ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

এমপির বিরুদ্ধে অনশনে বৃদ্ধ


নিজস্ব প্রতিবেদক মার্চ ১০, ২০২২, ০৭:১২ পিএম
এমপির বিরুদ্ধে অনশনে বৃদ্ধ

বরগুনা: বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের বিরুদ্ধে জমি জবরদখল করে স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ এনে ওই জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে আমরণ অনশনে বসেছেন এক বৃদ্ধ। 

বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) সকাল ৮টায় বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে তিনি জায়নামাজ বিছিয়ে অনশনে বসেন। 

বেলা ১টার দিকে একজন ব্যক্তি সেখানে এসে ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে এবং তাকে লাঞ্ছিত করে অনশন থেকে উঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ করেছেন ওই বৃদ্ধ।  

অনশনে বসা বৃদ্ধের নাম বেলায়েত হোসেন। তিনি পাথরঘাটা উপজেলার রায়হানপুর ইউনিয়নের পূর্ব লেমুয়া গ্রামের বাসিন্দা। 

বেলায়েত হোসেনের অভিযোগ, কাকচিড়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির সামনে কাকচিড়া-লেমুয়া সড়কের দক্ষিণ পাশে তার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমি দখলে নিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করছেন বরগুনা-২ আসনের এমপি শওকত হাচানুর রহমান রিমন। কাজ শুরুর পর তিনি এমপির সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কোনো ফল হয়নি। পরে পাথরঘাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন। কিন্ত তাতেও কোনো সমাধান হয়নি। নিরুপায় হয়ে আজ তিনি জমিতে স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ ও দখলমুক্ত করার দাবিতে অনশনে বসেছেন। 

বেলায়েত হোসেন বলেন, দুপুর একটার দিকে এমপি রিমনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ফোনের বরগুনা জেলার লোকজন সেখানে এসে তাকে হুমকি-ধামকি দেন এবং ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেন। পরে তিনি স্থান পরিবর্তন করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে বটগাছের নিচে বসেন। 

জমির দলিলপত্র দেখিয়ে বেলায়েত হোসেন বলেন, পাথরঘাটা উপজেলার লেমুয়া মৌজার জেএল নং-০৪, এসএ খতিয়ান নং-৫৪০/১১৬১ দাগ নং-৩১৭০ এর ৩.৫০ শতাংশ জমি নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে বণ্টন মামলা বিচারাধীন রয়েছে। ওই মামলায় সম্প্রতি জমিতে স্থিতাবস্থা জারি করে আদেশ দিয়েছেন আদালত। 

কিন্ত আদালতের আদেশ অমান্য করে গত ২২ ফেব্রুয়ারি বিকেলে স্থানীয় সাংসদ শওকত হাচানুর রহমান রিমন তার অনুসারী কাকচিড়ার বাসিন্দা মাহবুবকে দিয়ে ওই জমিতে মাটি কাটার কাজ শুরু করেন। তিনি এতে বাধা দেওয়ার পর বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার কথা বলা হয়। 

কিন্ত গত ২৭ ফেব্রুয়ারি দুপুর একটার দিকে তিনি তার জমিতে গিয়ে দেখতে পান, সেখানে স্থাপনা নির্মাণের কাজ করছেন এমপি। পরের দিন (২৮ ফেব্রুয়ারি) পাথরঘাটা থানায় জমি দখলের বিষয়টি উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ করেন বেলায়েত হোসেন। 

এর মধ্যে বেলায়েত হোসেনের ভাই অসুস্থ হওয়ায় তাকে চিকিৎসার জন্য বরিশাল নিয়ে যান। ফিরে এসে গতকাল বুধবার (০৯ মার্চ) দেখতে পান ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন এমপি রিমন। নিরুপায় হয়ে তাই অনশনে বসেছেন তিনি।

বেলায়েত আরও বলেন, আমার বয়স ৬৫ বছর। আমি এই জমির বণ্টন নিয়ে মামলা চালাতে গিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছি। এখন জমিটুকু ছাড়া কোনো সম্বল নেই। আমি আমার জমি বুঝে পেতে সবার সহযোগিতা চাই।

জমি দখল সম্পর্কে বরগুনা-২ আসনের এমপি শওকত হাচানুর রহমান রিমন সাংবাদিকদের বলেন, বেলায়েত হোসেনের দাবিকৃত খতিয়ানের ৩১৭০ দাগে আমি কাজ করছি না। ৩১৭১ দাগে আমার ৫ শতাংশ জমি কেনা আছে। ওই জমিতে আমি কাজ করছি। অনশনের বিষয়টি পুরোপুরি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। আমি সব কাগজ জেলা প্রশাসক ও পাথরঘাটা থানায় দিয়েছি।

বরগুনার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর মল্লিক বলেন, আমি বেতাগী থানা পরিদর্শনে এসেছি। সেখান থেকে ফিরে অভিযোগের বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। 

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System