• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

গ্রীষ্মের তিতুমীর কলেজ সেজেছে ভিন্ন রূপে


মো: শফিক খান মে ৬, ২০২৪, ১০:৩৯ পিএম
গ্রীষ্মের তিতুমীর কলেজ সেজেছে ভিন্ন রূপে

ঢাকা:  বাংলা বর্ষপঞ্জিতে বৈশাখ শেষের দিকে। গ্রীষ্মের তাপদাহে জনজীবন অতিষ্ঠ হলেও, মনোরম পরিবেশে নিয়ে এসেছে স্বস্তির বৃষ্টি। এরই মধ্যে ফুলে ফুলে সেজেছে রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজের ক্যাম্পাস। গাছের ডালপালায় এখন বিভিন্ন ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কৃষ্ণচূড়া, লাল জবা, নয়ন তারা, কাঠগোলাপ ও নাগচম্পা অবারিত উচ্ছ্বাস। মৃদু বাতাসে ফুলগুলো শিক্ষার্থীদের বিলিয়ে দিচ্ছে কোমল সৌরভ।

কলেজের শেখ রাসেল পুষ্পকানন, কলা ভবন, বিজ্ঞান ভবন, নতুন ভবন ও মাষ্টার্স ভবনের সামনে ফুটেছে বিভিন্ন ফুল। আকর্ষণীয় ও নজরকাড়া এই ফুলে ক্যাম্পাস পরিপূর্ণ থাকলেও শিক্ষার্থীদের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু কৃষ্ণচূড়া। ক্যাম্পাসে রূপের পসরা সাজিয়েছে সকলের পছন্দের ফুল গাছটি। কেউ কেউ, কৃষ্ণচূড়া ফুল হাতে ফ্রেমবন্দি করতে ব্যস্ত। 

কৃষ্ণচূড়ার মতোই দেখতে আরো একটি‌ গাছ রাধাচূড়া। কেউ ডাকে কনকচূড়া। একই ধরনের দেখতে হ‌ওয়ায় এটি কোন গাছ তা নিয়ে একেকজনের একেক মতামত। আলোচনা সাপেক্ষে কয়েকজন দিয়েছেন এর ব্যাখ্যা।

জানা যায়, কৃষ্ণচূড়া গাছের ছোট সংস্করণ রাধাচূড়া গাছ। কৃষ্ণচূড়ার মতো রাধাচূড়ার ফুলের রং লাল, কমলা, হলুদ হয়, তবে রাধাচূড়া একটি ছোট উদ্ভিদ । রাধাচূড়ার ফুলের মঞ্জুরি অনেকটা পেগোডার মত উপরের দিকে উঠে যায়। ফুলের আকার কৃষ্ণচূড়ার চেয়ে ছোট।

অন্যদিকে, কনকচূড়ার গাছ কৃষ্ণচূড়ার মতোই একটি বৃক্ষ জাতীয় বড় উদ্ভিদ। কনকচূড়া ফুলের রং হলুদ। ডালের আগায় কয়েকটি আলাদা আলাদা ফুলের মঞ্জুরি ঊর্ধ্বমুখী হয়ে বের হয়। ফুলের কলি গুলি থাকে গোলগোল। মঞ্জুরি নিচ থেকে ফুলফোটা শুরু হয়। এই ফুল দেখতে কৃষ্ণচূড়া বা রাধাচূড়ার মতো হয় না। 

এছাড়া বিজ্ঞান ভবনের সামনে চোখ পড়ে কাঠগোলাপ, নয়নতারাসহ বাহারি ফুল। তিতুমীরের বোটানিক্যাল গার্ডেনে কিছু অলকানন্দা ও বিভিন্ন ফুলও চোখে পড়ে। 

ফুল প্রেমী অনার্স প্রথম বর্ষের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী রুনা আক্তার বলেন, মানুষের পছন্দের জিনিস হলো ফুল। আর তা যদি ক্যাম্পাসে চারিপাশে ফুটে, তাহলে মন ও শরীর  প্রফুল্ল থাকে পাশাপাশি ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য ও বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও মৃদু বাতাসে ফুলের মিষ্টি সৌরভ ক্যাম্পাসকে করে শুভাশিত ।

বিকালে খেলতে আসা অনার্স তৃতীয় বর্ষের অর্থনীতি বিভাগের মাইনুল ইসলাম বলেন, ক্যাম্পাসে গেলে জানা-অজানা ফুলগুলো তাদের সৌন্দর্য দিয়ে মন কেড়ে নেয়। ফুলগুলোর রূপ গ্রীষ্মের তিতুমীরকে দেয় নতুন সাজ । শুধু গ্রীষ্মে নয়, প্রতিটি ঋতুতেই তিতুমীর কলেজ সাজে ভিন্ন রূপে।

এমএস

Wordbridge School
Link copied!