• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বাহারি ফলে সেজেছে তিতুমীর কলেজ


মো: শফিক খান মে ১৫, ২০২৪, ০১:২৪ পিএম
বাহারি ফলে সেজেছে তিতুমীর কলেজ

ঢাকা: বাংলা বর্ষপঞ্জির দ্বিতীয় মাস হলো জ্যৈষ্ঠ মাস। এই মাসকে মধু মাসও বলা হয়। কারণ জ্যৈষ্ঠ মাসে গাছে গাছে বিভিন্ন ফল পরিপক্ক হয়ে উঠে। এই মৌসুমে আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু, পেয়ারা, জামরুল, জাম্বুরা, আনারস, বেল, আতাফল, তরমুজ, লটকন ও গাবসহ আরও অনেক গ্রীষ্মকালীন ফল নিজের স্বাদ-গন্ধে ফলপ্রিয়দের মাতিয়ে রাখে। 

ফলের মোহে মেতে আছে শিক্ষার্থীরাও। রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজে দেখা মিলল এমনই কয়েকটি দৃশ্য। কলেজের প্রধান ফটক, শেখ রাসেল পুষ্পকানন, শেখ কামাল প্রশাসনিক ভবন সুফিয়া কামাল ছাত্রীনিবাস, শহীদ বরকত মিলনায়তন, বিজ্ঞান ভবন ও কলা ভবনের সামনে বিভিন্ন গাছের ফল আকৃষ্ট করছে শিক্ষার্থীদের।

ক্যাম্পাসে প্রধান ফটকে প্রবেশ করতেই হাতের ডানে দেখা যাবে কাঁঠাল গাছ, তেঁতুল গাছ। প্রায় সময় দেখা যায়, ছেলে শিক্ষার্থীদের তেঁতুল পারতে আর মেয়ে শিক্ষার্থীদের নিচে দাড়িয়ে অপেক্ষা করতে। এদিকে সুফিয়া কামাল ছাত্রীনিবাস ও অন্যদিকে শেখ কামাল ভবনের সামনে কামরাঙ্গাগাছ । গাছগুলোতে ফুল ধরতে শুরু করেছে। নারী শিক্ষার্থীদের হল রুমের কাছে ডাব গাছে ডাবের দেখাও মিলে। 

এছাড়াও শেখ রাসেল পুষ্পকাননের সামনে পেয়ারা, জাম্বুরা ও জামরুল গাছ নিজেদের দিকে অন্যদের আকৃষ্ট করছে। তাইতো ছোট অবস্থাতেই শিক্ষার্থীরা জাম্বুরা গাছ থেকে পেরে নিচ্ছে। আর পেয়ারাগুলো ছোট অবস্থায় কাঠবিড়ালিকে খেতে দেখা যায়। তাছাড়া কেউ কেউ পারছেন লাঠি দিয়ে।

কলা ভবন ও শহীদ বরকত মিলনায়তনের সামনে এবং অপর পাশে বিভিন্ন ফলের গাছ। গাছগুলো হলো কাঁঠাল,আম,জাম্বুরা জলপাই ও জাম। কাঁঠাল গাছে চোখ পড়লে দেখা যাবে, গাছের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কাঁঠালের অবাধ বিচরণ। যা সবার নজর কাড়ছে। 

তিতুমীর কলেজে মুক্ত মঞ্চের পাশেই আম, কাঁঠাল, পেয়ারা ও চালতা গাছ । শারীরিক শিক্ষা ভবনের সামনে গেলে দেখা যাবে আমলকী ও  বেল গাছ। তবে বেল গাছে বেল নেই বললে চলে । মেয়েদের হলের সামনের গাছে এখনো রয়েছে সুস্বাদু এই বেল ফল। 

বিজ্ঞান ভবনের সামনে গেলেই দেখা যায়, কাঁঠাল, আম, পেয়ারা, জামরুল, লিচু ও আপেল গাছ। লিচু ও আপেল গাছ থাকলেও গাছগুলোতে ফল ধরতে দেখা যায়নি। 

গাছগুলো কেবল এই মধু মাসেই নয় শিক্ষার্থীদের প্রাণবন্ত রাখে গোটা বছর। ফুলের মৌসুমে ফুলের সৌন্দর্য, প্রখর রোদে ছায়া, বৃষ্টিতে ছাতা আর আমৃত্যু অক্সিজেন ছড়িয়ে তিতুমীর কলেজকে রাখে প্রাণবন্ত।

এমএস

Wordbridge School
Link copied!