• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
সাক্ষাৎকারে সানোয়ার হোসেন

বাংলাদেশ ভালো করবে, তিন দলকে ফেভারিট মনে হয়


মো.আতিকুর রহমান অক্টোবর ১৬, ২০২১, ০২:৪৯ পিএম
বাংলাদেশ ভালো করবে, তিন দলকে ফেভারিট মনে হয়

ঢাকা : দুই বিভাগেই ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে শেষ হলো বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ প্রস্তুতি। প্রস্তুতি ম্যাচে ফল গুরুত্ব পায় কমই। ক্রিকেটারদের প্রস্তুতিটাকেই দেখা হয় বড় করে। সেখানে নেই তেমন কোনো সুখবর।

রানের দেখা নেই মুশফিকুর রহিম, শামীম হোসেন, আফিফ হোসেনদের ব্যাটে। বাংলাদেশের মাত্র চার ব্যাটসম্যান ছুঁতে পারেন দুই অঙ্ক। তাদের কেউ যেতে পারেননি ৪০ পর্যন্ত। নেই কোনো পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি। 

দেশ ছাড়ার পর থেকে পিঠের ব্যথায় কোনো ম্যাচ খেলতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। দুটি অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচেই বিশ্রাম ছিলেন মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন। আইপিএলে খেলার জন্য এখনও দলের সঙ্গে যোগ দেননি সাকিব আল হাসান। তাই পূর্ণ শক্তি নিয়ে কোনো ম্যাচ না খেলেই আগামী রোববার বিশ্বকাপ অভিযানে নেমে পড়তে হবে বাংলাদেশকে। উদ্বোধনী দিনে তাদের প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড। 

যদিও বাংলাদেশের প্রস্তুতি নিয়ে চিন্তিত নন বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটার সানোয়ার হোসেন। বাংলাদেশের হয়ে ২৭ ওয়ানডে ও ৯টি টেস্ট খেলা সাবেক এই ক্রিকেটার মনে করেন প্রস্তুতি ম্যাচের পারফরম্যান্স বিশ্বকাপে খুব বেশি প্রভাব ফেলবে না। আসন্ন বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে সোনালীনিউজকে বাংলাদেশের সম্ভাবনা নিয়ে নিজের ভাবনার কথা জানাতে গিয়ে এ প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বাংলাদেশ দলের সাবেক এই ক্রিকেটার। 

সোনালী নিউজ: এবারের বিশ্বকাপে কেমন করবে বাংলাদেশ?

সানোয়ার হোসেন: দেখুন টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের শক্তির জায়গাটা আমরা সবাই কম-বেশি জানি। এটা যদি ওয়ানডে বিশ্বকাপ হতো তাহলে বাংলাদেশের সম্ভাবনাটা অনেক বেশি থাকত। যদিও টি-টোয়েন্টিতে আমরা এখনো ওই পর্যায়ে যেতে পারিনি। বেশ কিছু জায়গায় আমাদের এখনো ইম্প্রুভমেন্টের দরকার আছে। টি-টোয়েন্টিতে শুধু রান করলেই হবে না, স্ট্রাইক রেট ঠিক রাখতে হবে। আমাদের এখনো বেশকিছু ব্যাটসম্যান দরকার যারা ১৩৫-১৪০ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করবে। বিশেষ করে বড় কোনো স্টেজ কিংবা ওয়ার্ল্ডকাপে ভালো করতে হলে আমাদের এই স্ট্রাইক রেটের বেশ কিছু ব্যাটসম্যান দরকার।  

সোনালীনিউজ: সেক্ষেত্রে সাকিব-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা কি যথেষ্ট নয়?

সানোয়ার হোসেন: আসলে দেখেন মুশফিক-সাকিব এদের স্ট্রাইক রেট ১২০-১২৫ এর মতো। তবে এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, বাংলাদেশ দলে সিনিয়র যারা আছেন নতুন যারা ঢুকেছে সবার যোগ্যতা আছে। কিন্তু এরপরও টি-টোয়েন্টির জন্য স্ট্রাইক রেটটা খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যেমন ধরেন ৫-৬ নাম্বার ডাউনে আমাদের ভালো স্ট্রাইক রেটের ব্যাটসম্যানের ঘাটতি আছে। ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো দলের দিকে তাকালে দেখবেন এই পজিশনে তাদের হার্দিক পান্ডিয়া, আন্দ্রে রাসেলের মতো ব্যাটসম্যান আছে। এরকম অনেক দেশেরই এই জায়গাটাতে খেলার মতো হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান আছে। যে জায়গাটায় আমাদের গ্যাপ আছে। 

সোনালীনিউজ: অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সিরিজে বাংলাদেশের যে পারফরম্যান্স আমরা দেখেছি, সেই ধারাবাহিকতা থাকবে তো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে?

সানোয়ার হোসেন: আশা করি কাজে আসবে। এই সিরিজগুলোর দিকে তাকালে মানসিকভাবেও আত্মবিশ্বাস পাবে মাহমুদউল্লাহরা। এর আগে বাংলাদেশ খুব একটা ভালো শেপে ছিল না। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মতো দলের সঙ্গে সিরিজ জেতা মানে আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে থাকা। টি-টোয়েন্টিতে অজি-কিউইদের মতো দলের বিপক্ষে সিরিজ জেতার কথা আমরা ভাবতেও পারতাম না। কিন্তু সেই কনফিডেন্সটা আমাদের হয়েছে। যদিও প্রস্তুতি ম্যাচগুলো আমাদের অনুকূলে ছিল না। তারপরও আন্তর্জাতিক আর প্রস্তুতি ম্যাচে অনেক পার্থক্য। 

সোনালীনিউজ: দুবাইয়ের পিচগুলো কেমন আচরণ করতে পারে?

সানোয়ার হোসেন: যেহেতু আইপিএল খেলা হয়েছে তাই পিচগুলো অনেক বেশি ব্যবহার হয়েছে। সেক্ষেত্রে দেখা গেছে ব্যাটসম্যানরাও সুবিধা পাচ্ছে অন্যদিকে স্পিনাররাও বেশ ভালো করেছে। বিশেষ করে আমরা যে কন্ডিশনে খেলে অভ্যস্ত, স্লো উইকেটে বাংলাদেশের বোলাররা ভালো বোলিং করে, এটা একটা এডভান্টেজ আমাদের জন্য।

সোনালীনিউজ: এবার তো ওপেনিংয়ে তামিম নেই? এই ঘাটতিটা কতটুকু পূরণ করতে পারবে বাংলাদেশের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানরা।

সানোয়ার হোসেন: এটা তো অবশ্য অনেক বড় একটা ঘাটতি আমাদের জন্য। তামিমের অভিজ্ঞতা ও পারফরম্যান্স অবশ্যই মিস করবে বাংলাদেশ। তারপরও লিটন, সৌম্য, নাঈমরা কিছুটা হলেও এই গ্যাপটা পূরণ করবে বলে আশা করি।

সোনালীনিউজ: সাকিব-মোস্তাফিজ তো আইপিএলে খেলেছে? এই দুজনই কি বাংলাদেশের ট্রামকার্ড হতে পারেন।

সানোয়ার হোসেন: এটা আমাদের জন্য অনেক বড় একটা এডভান্টেজ। যেই কন্ডিশন এবং যে পিচে বিশ্বকাপ খেলা হবে সেখানে অনেকদিন ধরেই খেলেছে তারা। এটা আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট। যদিও এ দুজনকেই ট্রামকার্ড ধরা যাবে না, বড় দলগুলোর সঙ্গে জিততে হলে আমাদেরকে অবশ্যই দলগতভাবে পারফরম্যান্স করতে হবে। মোট কথা বাংলাদেশকে জিততে হলে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই ভালো করতে হবে। 

সোনালীনিউজ: এবারের বিশ্বকাপে কোন দলকে ফেভারিট মনে করছেন?

সানোয়ার হোসেন: আমরা সবাই জানি, টি-টোয়েন্টিতে সবসময়ই ওয়েস্ট ইন্ডিজ একটা ডিফরেন্ট সাইড। তাদের অপরচুনিটি থাকবে, এছাড়া ইংল্যান্ড-ভারতেরও ভালো সুযোগ আছে।

সোনালীনিউজ: ধন্যবাদ সময় দেয়ার জন্য। 

সানোয়ার হোসেন: ওয়েলকাম, ধন্যবাদ সোনালীনিউজকেও।

সোনালীনিউজ/এআর

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System