• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

প্রশাসনে তিনস্তরে পদোন্নতি শিগগিরই


নিজস্ব প্রতিবেদক অক্টোবর ১৩, ২০২১, ০৯:৪৭ এএম
প্রশাসনে তিনস্তরে পদোন্নতি শিগগিরই

ঢাকা : প্রশাসনে আরও তিন স্তরের (সচিব, যুগ্ম সচিব ও উপসচিব) পদোন্নতি শিগগিরই। সচিব পদমর্যাদার কয়েকটি পদ শুন্য হয়ে যাওয়ায় চলতি মাসেই সচিব হবেন কমপক্ষে ৬ জন কর্মকর্তা। যার তালিকা প্রায় চুড়ান্ত করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। চলতি মাসের শেষের দিকে পদোন্নতির মাধ্যমে এ নিয়োগ দেওয়া হতে পারে। যুগ্ম সচিব পদে পদোন্নতি দিতে ইতমধ্যে কয়েকটি বৈঠকও করেছে প্রশাসনের পদোন্নতির সুপারিশকারী কর্তৃপক্ষ সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ড (এসএসবি)।

উপসচিব পদে পদোন্নতির জন্য যোগ্য কর্মকর্তাদের তালিকা চেয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ক্যাডার নিয়ন্ত্রণকারী অনান্য মন্ত্রণালয় গুলোকে আগামি ১৫ নভেম্বরের মধ্যে যোগ্য কর্মকর্তাদের তালিকা পাঠাতে বলা হয়েছে।

জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, পদোন্নতির বিষয়টি একটি চলমান প্রক্রিয়া। প্রশাসনে পদোন্নতি দিতে কাজ চলছে। কতজন পদোন্নতি পাচ্ছেন সুনির্দিষ্টভাবে বলা সম্ভব না।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বর্তমানে অবসরে চলে যাওয়া ও দপ্তর পরিবর্তনের কারনে সচিবের ৪ পদে কোন কর্মকর্তা নেই। এগুলো হলো, পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগ, ভূমি সংস্কার বোর্ড, ভূমি আপীল বোর্ড ও ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। এছাড়াও পরিকল্পনা বিভাগের সচিব জয়নুল বারী আগামি ১৫ অক্টোবর, মৎস ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ ২৫ অক্টোবর অবসরে যাচ্ছেন। চলতি মাসে সব মিলিয়ে সচিবের ৬টি পদ ফাকা হচ্ছে। চলতি মাসের শেষের দিকে অতিরিক্ত সচিবকে পদোন্নতি দিয়ে ৬টি পদে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে। শূন্য হতে যাওয়া এসব পদ পাওয়া নিয়ে চলছে হিসাব-নিকাশ। অবসরের সময় হওয়ায় কোনো কোনো সচিব চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেতে চেষ্টা করছেন।

গত ৩১ আগষ্ট এসএসবির প্রথম বৈঠকের মধ্যে দিয়ে যুগ্ম সচিব পদে পদোন্নতির প্রক্রিয়া শুরু করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। আজ মঙ্গলবার দুপুর ২টায় এসএসবির আরেকটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। খুব শীঘ্রই এই পদোন্নতি চুড়ান্ত করা হবে বলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়। এবার পদোন্নতির জন্য ২০তম ব্যাচ পর্যন্ত কর্মকর্তাদের বিবেচনা করা হচ্ছে। ২০ ব্যাচ যোগদান করেছিল ২৯৭ জন কর্মকর্তা। এরমধ্যে ২৬৮ জন উপ সচিব হিসেবে পদোন্নতি পায়। এখন এ ব্যাচে যুগ্ম সচিব হওয়ার যোগ্য রয়েছেন ২৪৮জন কর্মকর্তা।

এবারের পদোন্নতিতে উপসচিব পদমর্যাদার ৫৫৩ জন যোগ্য কর্মকর্তা বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে ২০তম ব্যাচ পর্যন্ত (লেফট আউটসহ) ৩২৪ জন কর্মকর্তা রয়েছে। ইকোনোমিক ক্যাডার কর্মকর্তা রয়েছে ৩৮ জন এবং অন্যান্য ক্যাডারের ১৯১ জন কর্মকর্তা রয়েছেন।

উপসচিব থেকে যুগ্ম সচিব পদে পদোন্নতি দেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে পদোন্নতি বিষয়ক কয়েকটি বৈঠক করে এসএসবি। বৈঠকে পদোন্নতির জন্য প্রত্যেক কর্মকর্তার কর্ম জীবনের সমস্ত নথিপত্র আলাদা আলাদাভাবে পর্যালোচনা করা হচ্ছে। বিশেষ করে প্রয়োজনীয় নম্বর, চাকরিজীবনের শৃঙ্খলা, দুর্নীতির বিষয়সহ সামগ্রিক বিষয় পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

সিনিয়র সহকারী সচিব থেকে উপসচিব পদের পদোন্নতিতে নিয়মিত হিসেবে ২৮তম ব্যাচকে বিবেচনা করা হচ্ছে। প্রশাসন ক্যাডারের পাশাপাশি অন্যান্য ক্যাডার থেকেও উল্লেখযোগ্যসংখ্যক কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেয়া হবে। এছাড়া যোগ্যতা থাকা সত্তে¡ও আগে পদোন্নতিবঞ্চিত বিভিন্ন ব্যাচের কিছু কর্মকর্তাকেও এই পদে পদোন্নতির জন্য বিবেচনা করা হতে পারে।

গতকাল উপসচিব পদে পদোন্নতির জন্য আগ্রহী বা যোগ্য বিভিন্ন ক্যাডারের ২৮তম ব্যাচ পর্যন্ত কর্মকর্তাদের তালিকা চেয়ে ক্যাডার নিয়ন্ত্রণকারী মন্ত্রণালয় গুলোকে চিঠি পাঠানো হয়। এতে বলা হয়েছে, যেসব কর্মকর্তার সিনিয়র স্কেল পদে নূন্যতম পাঁচ বছর চাকরিসহ সংশ্লিষ্ট ক্যাডারের সদস্য হিসেবে অনূন্য ১০ বছর পূর্ণ হয়েছে তাদের মধ্য থেকে ১০ জনের (জ্যেষ্ঠতার ক্রমানুসারে) নামের তালিকা ১৫ নভেম্বরের মধ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে বলা হয়। তবে কৃষি ও শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের ২৫ জনের তালিকা পাঠাতে হবে। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বর্তমান ঠিকানা ( টেলিফোন/মোবাইল নম্বরসহ), স্থায়ী ঠিকানা এবং চাকরির পূর্ণ বৃত্তান্ত আলাদা কাগজে পাঠাতে বলা হয়।

অযোগ্য কর্মকর্তাদের তালিকা না পাঠানোর নির্দেশনা দিয়ে চিঠিতে আরও বলা হয়, উপসচিব হতে অনাগ্রহী কর্মকর্তাদের নাম তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে। এছাড়া সিনিয়র স্কেলে চাকরির মেয়াদ পাঁচ বছর পূর্ণ না হলে ও ২৮তম ব্যাচের কর্মকর্তাদের যোগদানের জন্য নির্ধারিত তারিখের পরে যারা ক্যাডার সার্ভিসে যোগ দিয়েছেন তাদের নামও তালিকায় রাখা যাবে না।

একই সঙ্গে জ্যেষ্ঠতা সম্পর্কে কোনো আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকলে এবং ওই সব কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেয়া হলে আদালত অবমাননা হতে পারে এমন কর্মকর্তাদের নামও রাখা যাবে না। কর্মকর্তাদের তালিকার জ্যেষ্ঠতা অনুযায়ী সঠিক এবং নির্ভুলভাবে পাঠাতে হবে। কোনো ব্যত্যয়ের কারণে কোনো কর্মকর্তা যদি ভুলক্রমে পদোন্নতি পান বা পদোন্নতি থেকে বঞ্চিত হন তাহলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগকে এর দায়িত্ব বহন করতে হবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে অতিরিক্ত সচিবের ২১২ টি পদে কর্মরত রয়েছেন ৫০৪ জন। এরপর যুগ্ম সচিবের ৫০২টি পদে ৫৯৫ জন। উপসচিবের ১৩২৪টি পদে কর্মরত আছেন ১৯৬৯ জন।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System