• ঢাকা
  • বুধবার, ২৯ জুন, ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে এতিম দুই শিশুর বাড়িতে ইউএনও


ঝিনাইদহ প্রতিনিধি এপ্রিল ২৩, ২০২২, ০২:১৭ পিএম
ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে এতিম দুই শিশুর বাড়িতে ইউএনও

ঝিনাইদহে বাবা-মা হারা দুই ভাইবোনকে ঈদ উপহার দিলেন ইউএনও সাদিয়া জেরিন

ঝিনাইদহ : ৯ বছরের সাকিমা খাতুন ও পাঁচ বছরের সাবিদ হোসাইন আপন দুই ভাইবোন। প্রায় সারাটা দিন বাড়ির উঠানে ও আঙিনার ছোটাছুটি করে বেড়াচ্ছে তারা। দুই ভাইবোনের পদচারণা শুধু নিজের বাড়ির উঠান অব্দি থেমে নেই। আশপাশের বাড়িগুলোতেও একইসাথে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তারা।

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ বড় ঘিঘাটি গ্রামের প্রয়াত আবদুল মুজিদ দম্পতির পরিবারে প্রথমে জন্ম নেয় মেয়ে সাকিমা ও তার চার বছর পরে জন্ম নেয় সাবিদ। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সংসার ও সন্তানের মায়াজালকে ছিন্ন করে তাদের মা অন্য পুরুষের সাথে চলে যান। তবুও ছেলে ও মেয়েকে নিজ বুকে আগলে রেখে চলছিলেন তিনি। এরই মধ্যে গত ২০ মার্চ হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান আবদুল মুজিদ।

বাবা মারা যাওয়ার পর সাকিমা-সাবিদ অভিভাবক শূন্য হয়ে পড়ে। ৯ বছরের শিশুকন্যা সাকিমা বড় ঘিঘাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। তার ভাই পাঁচ বছরের সাবিদ হোসাইন চলতি বছরে ওই একই স্কুলের প্রাক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছে মাত্র।

বর্তমানে এই দুই এতিম সন্তান তার বড় চাচা আবদুল আজিজের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। তাদের লেখাপড়ার খরচ ও ভরণপোষণের সার্বিক খরচ কে বহন করবেন তা নিয়ে অনেক শঙ্কা দেখা দেয়।

আবদুল আজিজ জানান, নিজ পরিবার ও সন্তানদেরকে নিয়ে সংসার চালাতেই তাকে অনেক হিমশিম খেতে হয়। এখন আবার বাবা-মা হারানো সাকিমা-সাবিদের পেছনে ব্যয়ের দিকটা নতুন করে যোগ হওয়ায় সংসার চালাতে কষ্টই হচ্ছে তার। তবুও তাদেরকে সন্তানের মতো দেখভাল করার সাধ্যমতো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

সাকিমা-সাবিদের ভবিষ্যৎ নিয়ে তিনি খুব শঙ্কিত বলেও জানান আবদুল আজিজ।

তিনি বলেন, তারা এখনো বাবা-মা হারানোর ব্যাপারটা বোঝেই না। এখন তারা বায়না ধরেছে- তাদেরকে বাজারে নিয়ে গিয়ে ঈদের পোশাক কিনে দিতে হবে।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া জেরিন জানান, ওই দুই শিশুর জীবনের গল্প খুবই কষ্টের। কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ থেকে তাদের জন্য ঈদের উপহার হিসেবে পোশাক, খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। বর্তমান পরিবারের সাথে তাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে বিভিন্ন আলোচনা করা হয়েছে।
 

ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে এতিম দুই শিশুর বাড়িতে ইউএনও

এ বিষয়ে ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ঋতু জানান, ওেই দুই শিশুর জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাটি অত্যন্ত হৃদয়বিদারক। এত অল্প বয়সে অভিভাবকহীন হয়ে পড়ায় তাদের জীবন অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে গেছে। সাধ্যমতো ইউনিয়ন পরিষদ ও ব্যক্তিগত তহবিল থেকে তাদেরকে সাহায্য করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System