• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
বিশ্বকাপ-২০২৩

মাশরাফি-তাসকিনও কেঁদেছিলেন, নিরব কান্না তামিমেরও


ক্রীড়া ডেস্ক সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২৩, ০৯:৫৭ পিএম
মাশরাফি-তাসকিনও কেঁদেছিলেন, নিরব কান্না তামিমেরও

ঢাকা: বিশ্বকাপের আগে দল দিয়ে জলঘোলা বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন কিছু নয়। বরং এমন নাটক না হলেই সেটা হতো বড় বিস্ময়ের এক খবর!

জাতীয় দলের বতর্মান প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুকে ১৯৯৯ বিশ্বকাপে স্কোয়াডে নেওয়া না নেওয়া নিয়ে হয়েছিল নাটক। প্রথমে তাকে বাইরে রেখেই দল ঘোষণা করা হয়। পরে প্রবল সমালোচনার মুখে নান্নুকে অন্তর্ভূক্ত করা হয় বিশ্বকাপ স্কোয়াডে।

ব্যাট হাতেই জবাব দিয়েছিলেন নান্নু। প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে গিয়ে অস্ট্রেলিয়া ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হাফসেঞ্চুরি করেন তিনি।

২০০৭ বিশ্বকাপের আগে ঝামেলা লেগেছিল অন্য এক ইস্যু নিয়ে। সেবার দল ঘোষণার আগেই বিতর্ক শুরু হয়েছিল, উইকেটকিপিংয়ে থাকবেন কে-তরুণ মুশফিকুর রহিম নাকি অভিজ্ঞ খালেদ মাসুদ পাইলট?

২০১১ বিশ্বকাপে মাশরাফি বিন মর্তুজাকে ঘিরে নাটক। বিশ্বকাপের আগে চোটে পড়েছিলেন মাশরাফি। কিন্তু তিনি নিজেকে ফিট দাবি করেন। তবু নির্বাচকরা দলে রাখেননি এই পেসারকে। দল থেকে বাদ পড়ার পর মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে মাশরাফির সেই কান্না কাঁদিয়েছিল ক্রিকেট-ভক্তদের।

২০১৫ বিশ্বকাপের আগে আইনি ঝামেলায় জড়িয়ে জেলে গিয়েছিলেন পেসার রুবেল হোসেন। পরে জামিন নিয়ে তিনি খেলতে যান বিশ্বকাপ। রুবেলের দুর্দান্ত বোলিংয়েই ইংল্যান্ডকে বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালে নাম লেখায় বাংলাদেশ।

এরপর গত বিশ্বকাপে তাসকিন আহমেদের দলে সুযোগ না পাওয়া নিয়েও নাটক হয়েছে। চোট থেকে সেরে ওঠা তাসকিনের ম্যাচ ফিটনেস নেই বলে বাদ দিয়েছিলেন নির্বাচকেরা। বিশ্বকাপ দলে সুযোগ না পেয়ে মাশরাফির মতোই অঝোরে কেঁদেছিলেন তাসকিন।

এবার বিশ্বকাপের বেশ আগেই তামিম ইকবালের কান্না আর অবসর নিয়ে হয়ে গেছে কয়েক দফা। পরে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে অবসর ভেঙে ফেরেন তামিম, খেলার কথা ছিল বিশ্বকাপেও।

সব ঠিকঠাক ছিল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাঠে নেমে ৪৪ রানের ইনিংসও খেলেন। কিন্তু দুদিন না যেতেই তামিমকে নিয়ে ফের ঝামেলা।

তিনি পুরোপুরি ফিট নন, বিশ্বকাপে সব ম্যাচ খেলতে পারবেন না। এমন খবর শোনার পর চটেছেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তাতে করে বিশ্বকাপ স্কোয়াডের বাইরে ঠেলে দেওয়া হয়েছে তামিমকে। তবে এ বিষয় নিয়ে এখনো মুখ খুলেননি তামিম। হয়তো সংবাদ সম্মেলনে আবারো কাঁদতে দেখা যাবে দেশসেরা এই ওপেনারকে। ততক্ষণ পর্যন্ত নিরব কান্নাই কুঁড়ে কুঁড়ে খাবে তামিমকে।  

এআর

Wordbridge School
Link copied!