• ঢাকা
  • সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১

বাড়িতে বাবার মরদেহ রেখে এসএসসি পরীক্ষা দিলো সৈকত


দিনাজপুর প্রতিনিধি ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৪, ০১:২৪ পিএম
বাড়িতে বাবার মরদেহ রেখে এসএসসি পরীক্ষা দিলো সৈকত

দিনাজপুর : বাবা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সম্পদ। আদর, স্নেহ, ভালোবাসা, আর পরম নির্ভরতার নাম বাবা। জীবনের সব ক্ষেত্রেই বাবার থেকে বেঁচে থাকার শক্তি পায় সন্তান। বাবার প্রতি সন্তানের চিরন্তন ভালোবাসার প্রকাশ প্রতিদিনই ঘটে। তাই এই বাবার কিছু হলে সন্তানরা ঠিক থাকতে পারেনা। আর জন্মদাতা বাবা পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরপারে চলে গেলে সেই সন্তান আর কীভাবে স্বাভাবিক থাকে।

কিন্তু দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় ঘটেছে এক ব্যতিক্রমী ঘটনা। নিজের জন্মদাতা বাবার মরদেহ বাসায় রেখে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে সৈকত নামে এক শিক্ষার্থী।

জানা গেছে, বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৭টায় এসএসসি পরীক্ষার্থী সৈকতের বাবা বীরগঞ্জ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মাষ্টারপাড়ার বাসিন্দা শফিউল আলম সুরুজ মারা যান। শফিউল আলম সুরুজ ওই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য।

শফিউল আলমের ছেলে সৈকত মাহানপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। তার পরীক্ষার কেন্দ্র পড়েছে একই উপজেলার ভোগনগর ইউনিয়নের রহিম বখস উচ্চ বিদ্যালয়ে।

মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোপাল দেব শর্ম্মা জানান, শফিউল আলম সুরুজ মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে দুই বারের ইউপি সদস্য। বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে নিজ বাসায় মারা যান তিনি। তার নামাজের জানাজা বিকেলে ৩টায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। মৃত বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখেই মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়েছে সৈকতকে।

বীরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: জুলফিকার আলী শাহ বলেন, সৈকত মাহানপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মানবিক বিভাগের মেধাবী ছাত্র। মৃত্যুবরণ করার পরেও বৃহস্পতিবার বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষা দিয়েছে।

এমটিআই

Wordbridge School
Link copied!