• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭

তামিমার স্বামী রাকিবের লিগ্যাল নোটিশ


ক্রীড়া ডেস্ক ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১, ০১:১২ পিএম
তামিমার স্বামী রাকিবের লিগ্যাল নোটিশ

ঢাকা : প্রতারণার হাত থেকে বাঁচতে বিয়ে ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন ডিজিটালাইজেশন করার নির্দেশনা চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে আদালতে।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ক্রিকেটার নাসিরের সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মির আরেক স্বামী ভুক্তভোগী রাকিব হাসানসহ তিন ব্যক্তি মিলে একটি সংগঠনের পক্ষ থেকে নোটিশটি পাঠানো হয়েছে।

এ লিগ্যাল নোটিশে আইন সচিব, তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব ও ধর্ম মন্ত্রণালয় সচিবকে এ লিগ্যাল নোটিশ পাঠানোর নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

নোটিশ প্রেরণকারী অন্যরা হলেন, ‘এইড ফর ম্যান ফাউন্ডেশন’ নামে একটি সংগঠন, ভুক্তভোগী সোহাগ হোসেন ও কামরুল হাসান। লিগ্যাল নোটিশটি সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইশরাত হাসানের মাধ্যমে পাঠানো হয়।

এর আগে ক্রিকেটার নাসির তার সদ্য বিবাহিতা স্ত্রী তামিমা এবং তার আগের স্বামী রাকিবকে নিয়ে সংবাদমাধ্যমে চলমান বিতর্ক যখন তুঙ্গে তখন রাকিবের পাশে দাঁড়ানোর কথা বলে পুরুষের অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠন ‘এইড ফর মেন’। সময়নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ তথ্য নিশ্চিত করেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম নাদিম।

তিনি বলেন, আমরা মূলত পুরুষদের নিয়ে কাজ করি। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ও গণমাধ্যম থেকে জানা যায়, রাকিব হাসানের স্ত্রী তামিমা তাম্মি তার স্বামীকে ডিভোর্স না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছেন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। যখন কোনো পুরুষ ভিকটিম হয় আমরা তখন তাদের ঘটনাগুলো বোঝার চেষ্টা করি।

তিনি আরও বলেন, গতকাল রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) আমরা রাকিব ভাইয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করি। তার কাগজপত্রগুলোও আমরা এ সময় দেখি। আমাদের এখন পর্যন্ত অবজারভেশনে তাকে (রাকিব) যে ডিভোর্স করা হয়েছে এমন কোনো কাগজপত্র আমরা পাইনি। তো একতরফাভাবে ডিভোর্স করলেও তো ওই মেয়ে ডিভোর্স করে বিয়ে করবে, এই ধরনের কোনো ডকুমেন্টস কিন্তু প্রুফ করে নাই। সেই অর্থে এটা ৪৯৫ ধারাতে একটা অপরাধ হয়। যার শাস্তি সাত বছরের জেল হতে পারে। উনার যদি কোনো আইনি সহায়তা লাগে তাহলে আমরা এ বিষয়ে তাকে লিগ্যাল প্যানেল থেকে সব ধরনের সহায়তা করতে পারব। আমরা তাকে সোশ্যালি এবং লিগ্যালি যতটুকু সাপোর্ট দেওয়া সম্ভব সেটাই দেব।

তিনি আরও বলেন, আমাদের কাছে শুধু রাকিবের ঘটনাটাই ফ্যাক্টর তা না। আমরা দেখছি প্রচুর মেয়েরা বিবাহের রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতির যে ফাঁকফোকরটা আছে তা ‘মিস ইউস’ করছে। এতে পুরুষরা ভিকটিম হয়ে যাচ্ছে। এই ঘটনাগুলোকে গুরুত্ব দিয়ে আমরা তাদের পাশে দাঁড়াতে চাই।

উল্লেখ্য, এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নিচ্ছেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান। তিনি জানান, বিষয়টি নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেছেন। উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাও (ওসি) শাহ মো. আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তবে জিডির কপি প্রকাশ হওয়ার পর বেরিয়ে এসেছে তামিমার আরেক বিয়ের তথ্য। রাকিবের সঙ্গে সংসার করা অবস্থায় তামিমা আরেকটি বিয়ে করেছিলেন। সেখানে ছয় মাস সংসারও করেছিলেন।

রাকিবের করা জিডিতে এমন তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। জিডিতে বলা হয়েছে, ২০১১ সালে তামিমা তাম্মিকে বিয়ে করেন রাকিব। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি মেয়ে রয়েছে। এর মধ্যেই তামিমা অন্য এক ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ায়। ছয় মাস সংসার করার পর ফিরে আসে। পরে রাকিবের সঙ্গে ক্ষমা চেয়ে পার পায়। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি নতুন করে নাসিরের সঙ্গে ছবি ভাইরাল হলে রাকিব জানতে পারেন, তামিমা বিয়ে করেছেন।

জিডি করার কারণ উল্লেখ করে রাকিব বলেন, সংসারজীবনে বিবাদীর কাছে অনেক টাকা ও স্বর্ণালংকার রাখা আছে। এমনকি আমাকে তালাকও দেননি। টাকা ও অলংকার চাইলে বিবাদী আমাকে ক্ষতি করবে বলে হুমকি দিয়েছেন। আপাতত কোনো মামলা করবেন না বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

রাকিব হাসান ও তামিমার কাবিননামায় দেখা যায় ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তিন লাখ টাকা দেনমোহরে তাদের বিয়ে হয়। রাকিবের দাবি, গেল ১১ বছরে তার স্ত্রীর পড়াশোনা থেকে শুরু করে জব সবক্ষেত্রেই তিনি সাহায্য করেছেন।এই বিষয়ে জানতে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী তামিমা সুলতানার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

তবে পুলিশে জিডি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলা সমালোচনা আর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদকে পাত্তা না দিয়ে গুলশানের লেকশোর হোটেলে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিত হলো নাসির তামিমা জুটির বিবাহোত্তর সংবর্ধনা। এই সংবর্ধনায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে ছিলেন অনেকে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই