• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮

‘ধানক্ষেতেও আমাদের ভালো করা উচিত’


ক্রীড়া ডেস্ক ডিসেম্বর ৩, ২০২১, ০৪:০০ পিএম
‘ধানক্ষেতেও আমাদের ভালো করা উচিত’

ঢাকা: টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক উপমহাদেশের দেশগুলোর বিপক্ষে ব্যাটিং উইকেটেই খেলতে চান। ২১ বছর ধরে ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণ টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। কিন্তু যেন পেশাদারিত্বের অভাব দেখা যাচ্ছে ক্রিকেটারদের মধ্যে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে চলমান সিরিজের প্রথম টেস্টেও দেখা গেছে একই চিত্র, দুই ইনিংসের শুরতেই বাজে ব্যাটিং। প্রথম ইনিংসে ৪৯ রান স্কোরবোর্ডে জমা না হতেই নেই চার উইকেট, আর দ্বিতীয় ইনিংসে আরো বাজে অবস্থা। ২৫ রানে প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারায় বাংলাদেশ।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার (৪ ডিসেম্বর) থেকে শুরু হবে দ্বিতীয় টেস্ট। এই ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মুমিনুল হককে পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে। তখনই দলনেতা জানালেন, ধানক্ষেতেও পেশাদার ক্রিকেটারদের ভালো খেলতে হবে। 

পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে এসে মুমিনুল বলেছেন, ‘এটা সবাই জানে, উপমহাদেশের ব্যাটসম্যানরা স্পিন ভালো খেলে। তাই এখানকার দলগুলোর বিপক্ষে স্পিন উইকেটে না খেলাটাই ভালো। কেবল আমি নই, বিশ্বের সব দলই তা-ই করবে। তাই আমার মনে হয়, ভালো ব্যাটিং উইকেটে খেলাটাই ভালো হবে।’

তবে পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যেকোনো উইকেটের সঙ্গেই তাদের মানিয়ে নিতে হবে। সেটি বোঝাতে গিয়ে মুমিনুল বলেছেন, ‘পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে উইকেটের অজুহাত কাম্য নয়। এটাতে আমি নিজেও একমত নই। যদি ধানক্ষেতেও খেলতে দেওয়া হয়, পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে সেখানেও আপনাকে ভালো খেলতে হবে। এসব নিয়ে অজুহাত না দিয়ে জেতার জন্য আরেকটু পেশাদারিত্ব দেখালেই ভালো হয়।’

মুমিনুল অবশ্য পশাদারিত্বকে শুধু খেলার মাঠেই সীমাবদ্ধ রাখতে চান না। তার কথায়, ‘সবকিছু মিলেই কিন্তু পেশাদারিত্ব। নিয়মানুবর্তিতার বিষয় আছে, ভালোমতো অনুশীলন করা, নিয়মমাফিক কাজ করা, প্রতিপক্ষের শক্তি ও দুর্বলতার জায়গা বুঝে অনুশীলন করা-এগুলোও কিন্তু পেশাদারিত্বের ভেতরেই পড়ে। সবাই এ ক্ষেত্রে পেশাদার, কেউ হয়তো সফল হচ্ছে, কেউ হচ্ছে না।’

তবে মিরপুরের উইকেটের গল্পটা অবশ্য এতটা সহজ নয়। মিরপুরের উইকেট যে কখনো ব্যাটিং–সহায়ক, কখন বোলিং–সহায়ক, সেটি বলা মুশকিল। লাল বলে অবশ্য ভালো ব্যাটিং উইকেটেরই আশায় আছেন টেস্ট অধিনায়ক, ‘সাদা বলে একরকম হয়। সাদা বলে যেহেতু দুই পাশ থেকে নতুন বল থাকে, তখন হয়তো বিভিন্ন কিছু হয়। কিন্তু লাল বলে তো দুই দিকেই একই বল ব্যবহার হয়। আমার কাছে মনে হয় যে লাল বলে সাদা বলের চেয়ে ভালো উইকেট হবে।’

সোনালীনিউজ/এআর

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System