• ঢাকা
  • রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

সিঙ্গাপুরকে হারাল বাংলাদেশের মেয়েরা


ক্রীড়া ডেস্ক ডিসেম্বর ১, ২০২৩, ০৮:০৮ পিএম
সিঙ্গাপুরকে হারাল বাংলাদেশের মেয়েরা

ঢাকা: কমলাপুরে শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে পুরো ম্যাচে আধিপত্য দেখাল বাংলাদেশ।  

র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৩০ নম্বরে থাকা সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জিতেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। বাংলাদেশের পক্ষে জোড়া গোল করেছেন তহুরা খাতুন। অন্য গোলটি আফিদা খন্দকারের।।

ম্যাচের প্রথম মিনিটেই গোল করে এগিয়ে যেতে পারত বাংলাদেশ। সিঙ্গাপুরের এক ডিফেন্ডারের পা থেকে বল কেড়ে প্রায় একক প্রচেষ্টায় বল নিয়ে ঢুকে পড়েছিলেন তহুরা খাতুন। কিন্তু সিঙ্গাপুরের গোলকিপার তান লি বিনকে একা পেয়েও তিনি গোল করতে পারেননি। 

শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগে তিনি বল হারান। তবে এগিয়ে যেতে বেশি সময় নেয়নি বাংলাদেশ। পরের মিনিটেই এগিয়ে যায় সাইফুল বারী টিটুর দল। সাবিনা শর্ট কর্নার থেকে প্রথমে বল ঠেলেছিলেন মারিয়া মান্দাকে। মারিয়া সেই বল আবার দেন সাবিনাকে। এরপর সাবিনা গোলমুখে যে ক্রসটি ফেলেন তা থেকে হেড করে গোল করেন আফিদা খন্দকার।

বাংলাদেশে দ্বিতীয় গোলটি পায় ১৬ মিনিটে। এ গোলটি পেতে পারতেন মারিয়াই। মারিয়া সিঙ্গাপুরের রক্ষণভাগের এক খেলোয়াড়ের পা থেকে বল কেড়ে একক প্রচেষ্টায় ঢুকে যান গোলমুখে। তাঁর সামনে যখন শুধু সিঙ্গাপুরের গোলকিপার তান লি বিন, তখন পাশে তিনি বল ছেড়ে দেন তহুরাকে। সহজেই বল জালে পাঠান তিনি। 

প্রথমার্ধে বাকিটা সময় সিঙ্গাপুরের গোলমুখে একের পর এক আক্রমণ চালিয়েছে বাংলাদেশ। ডান ও বাঁ, দুই দিক দিয়েই সিঙ্গাপুরের রক্ষণভাগকে ব্যস্ত রেখেছিলেন ঋতুপর্না, মারিয়া মান্দা, সাবিনা, সানজিদা, মনিকারা। এই সময় গোল করার সবচেয়ে কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিলেন অধিনায়ক সাবিনা। সিঙ্গাপুরের বক্সের ঠিক মাথায় বল পেয়ে সরাসরি পোস্ট লক্ষ্য করে শট নিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর বাঁকানো শটটি ক্রসবারে বাতাস লাগিয়ে ওপর দিয়ে চলে যায়

দ্বিতীয়ার্ধের চিত্রটাও একই। সিঙ্গাপুরের সীমানায় বাংলাদেশের মেয়েদের একের পর এক আক্রমণ। কিন্তু পরিষ্কার কোনো গোলের সুযোগ নেই। তবে বাংলাদেশের পক্ষে তৃতীয় গোলটি করেন তহুরাই। এই গোলটি ছিল অসাধারণ। ৫৯ মিনিটে মাসুরা পারভীনের পেছনে থেকে বাড়ানো লম্বা থ্রু সিঙ্গাপুরের বক্সের মাথায় পেয়ে যান তহুরা। তিনি দারুণভাবেই সেটি সিঙ্গাপুরের গোলকিপারের মাথার ওপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন জালে। তবে দ্বিতীয়ার্ধের ৭৮ মিনিটে মারিয়া মান্দা যে সুযোগ নষ্ট করেছেন, সেটির জন্য তার আক্ষেপ হওয়ারই কথা। 

গত বছর সেপ্টেম্বরে নেপালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ের পর মেয়েদের ফুটবলটা মাঠে অনিয়মিতই হয়ে গিয়েছিল। ২০২৩ সালে বাংলাদেশ নারী দল ম্যাচ খেলেছে মাত্র পাঁচটি। গত জুলাই ঘরের মাঠে নেপালের বিপক্ষে দুটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের পর সেপ্টেম্বরে খেলেছে এশিয়ান গেমস। জাপান, ভিয়েতনাম ও নেপালের বিপক্ষে হাংজু এশিয়াডে তিনটি ম্যাচের পর সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে দুই প্রীতি ম্যাচের প্রথমটি বাংলাদেশের মেয়েরা জিতল ভালোভাবেই। র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে আজকের জয় মেয়েদের ফিফা র‍্যাঙ্কিং বাড়ানোয় ভূমিকা রাখবে।

এআর

Wordbridge School
Link copied!