• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

সাজাই বিয়ের তত্ত্ব


ফিচার ডেস্ক ডিসেম্বর ১৮, ২০২১, ০১:৫৮ পিএম
সাজাই বিয়ের তত্ত্ব

ঢাকা : বহু আগে বর-কনের বাড়িতে তত্ত্ব যেত বাঁশ ও ঝুড়ির ডালায়। আর তত্ত্ব হিসেবে যেত বরের পোশাক, হলুদ, মেহেদি, রাখি, মিষ্টি ও পান-সুপারি।

এ ছাড়া কনের জন্য আলতা, চুড়ি, ফিতা ও টিপ পাঠানোরও প্রচলন ছিল। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে তত্ত্ব দেওয়ার ধরনেও এসেছে অনেক পরিবর্তন। বিয়ে উপলক্ষে বর-কনের বাড়িতে যে উপহার পাঠানো হয়, তাকেই মূলত তত্ত্ব বলা যায়। হলুদে এখন ১০ বা ১২ ধরনের ডালা বা অনেক ক্ষেত্রে তার চেয়ে বেশিও দেওয়া হয়ে থাকে।

এ ছাড়া এখন হলুদের তত্ত্বে হলুদ, মেহেদি, পোশাক, মিষ্টি, পিঠা,পান-সুপারি ছাড়াও বিভিন্ন ফলের ঝুড়িও দেওয়া হয়।

আগের মতো স্যুটকেসে ভরে পোশাক বা আনুষঙ্গিক জিনিস পাঠানোর রীতি এখন নেই বললেই চলে। এ সবই এখন তত্ত্বের দপ্তরে। পোশাক, গয়না, অ্যাকসেসরিজ এবং জুতার জন্য আলাদা ডালা বা সুদৃশ্য প্যাকেট ব্যবহার করুন। কসমেটিকস, গয়না, জুতা ইত্যাদি অনুষঙ্গ টিস্যু, নেট বা সাটিন ফেব্রিকসে মুড়িয়ে জরি রিবন দিয়ে বেঁধে ডালার ভেতর সেট করে দিলে বেশ সুন্দর দেখাবে। বর-কনের পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যাবে এমন রং ও নকশার ডালা বেছে নেওয়া ভালো। ডালা বা প্যাকেট যা-ই হোক, তার ঢাকনা থাকা চাই।

চাইলে স্বচ্ছ নকশাদার প্লাস্টিক পেপারে মুড়ে দিতে স্কচটেপ দিয়ে আটকে দিতে পারেন। এতে জিনিসপত্রের ভাঁজ সুন্দর থাকবে, আবার বহনেও সুবিধা হবে। হলুদের তত্ত্বের ডালায় রাখতে পারেন নানা রকমের শৌখিন বাটি। উজ্জ্বল রং-তুলির নকশা থাকতে পারে মাটির বাটি আর প্রদীপের বাটির গায়ে।

অভিজাত কিছু চাইলে মেটালের নকশাদার বাটি আর প্রদীপ যোগ করুন তত্ত্বের ডালায়। সে ক্ষেত্রে ডালার রঙের সাজও অ্যান্টিক ধাঁচের হলে ভালো দেখাবে। হলুদের জন্য একটু বড় আকৃতির আলপনা করা শীতলপাটি বেছে নিন। শীতলপাটির চারপাশে জরি কাপড় দিয়ে মুড়ে দিতে পারেন। কাতান বা ভেলভেট কাপড়ও পাটির সৌন্দর্য বাড়াবে। ফল বা চকোলেটের জন্য হ্যান্ডমেইড দড়ির ঝুড়ি বেছে নিতে পারেন। চিকন বেতের ঝুড়িও ভালো লাগবে। তাতে রঙিন ফিতা মুড়িয়ে ডিজাইন করতে পারেন। চাইলে রঙিন কাগজও ব্যবহার করা যায়। পিঠা বা অন্য কোনো মিষ্টান্নর জন্য রঙিন শখের হাঁড়ি নিতে পারেন। রং-তুলি দিয়ে থিম মেলানো নকশা থাকুক হাঁড়িজুড়ে। আরেকটু দৃষ্টিনন্দন করতে হাঁড়ির সঙ্গে পাটের শিকা জুড়ে দিতে পারেন।

তত্ত্বের গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ মিষ্টি। তত্ত্বের থিমের সঙ্গে মিষ্টির ডালার সাজ সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়া চাই। সাধারণ কাগজের ডালা বা মিষ্টির প্যাকেট বর্ণিল র্যাপিং পেপারে মুড়ে দিতে পারেন। মাছ, কলকা, পানপাতাসহ বিভিন্ন আকৃতির ডালা বেছে নিতে পারেন তত্ত্বের মিষ্টি সাজাতে। হ্যান্ডমেইড কাগজের র্যাপিং পেপার ব্যবহারে তত্ত্বের মিষ্টির সাজে বৈচিত্র্য আসবে। বেত বা বাঁশের ডালায় মিষ্টি সাজাতে চাইলে ডালার নিচে ফয়েল পেপার বিছিয়ে নিন। ডালার এক কোণে শুকনো ফুল, প্রজাপতি বা রঙিন কাগজের হ্যান্ডিক্রাফট নকশা বসাতে পারেন। সহজ কিছু চাইলে বাজারে রিবনের বিভিন্ন ধরনের ফুল পাওয়া যায়, সেগুলো ব্যবহার করা যায়। ব্যতিক্রমী কিছু চাইলে ডালার নিচে পাতলা আয়না বসিয়ে তাতে মিষ্টি সাজাতে পারেন। রঙিন ফেব্রিকসে মোড়ানো কাগজের ডালায় কালারফুল ফ্রেমের গ্লাসওয়ার্ক আঠা দিয়ে লাগিয়ে দেওয়া যায়।

দুই পরিবারের পছন্দ জানুন : আজকাল দুই পরিবার এক হয়ে নানা বিষয়ে খোলামেলা আলাপ করে নেন। আগেভাগেই জেনে নিন, কুটুমবাড়ির পরিবারের সদস্যরা কেমন পোশাক পছন্দ করেন। হবু শ্বশুর-শাশুড়ির পোশাক বাছাইয়ের ক্ষেত্রে অবশ্যই তাদের পছন্দকে প্রাধান্য দিন। তত্ত্বে পোশাক তো পাঠাবেনই, সঙ্গে আরো বিশেষ কিছু। হবু শ্বশুরবাড়িতে ননদ বা শ্যালিকা থাকলে পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং করে ব্যাগ, গয়না, সুগন্ধি এবং জুতাও দিতে পারেন। বাড়ির খুদে সদস্যদের জন্য অবশ্যই নিন সফট টয় বা চকোলেট। বাড়ির পুরুষ সদস্যদের জন্য দিতে পারেন গ্রুমিং গ্যাজেট বা স্মার্ট কোনো এক্সেসরিজ।

কিভাবে পাঠাবেন : তত্ত্বে কী পাঠাবেন সেটা যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি কীভাবে পাঠাবেন সেটাও কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ। সুন্দর করে সাজিয়ে পাঠানো উপহারও অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। এক্ষেত্রে আধুনিক ডিজাইনের কারুকাজ করা ট্রে, বেতের ঝুড়ি, বাক্স, পুঁটলি, বটুয়া ইত্যাদিতেও তত্ত্ব পাঠাতে পারেন। তবে বাঙালির ঐতিহ্যের কথা বললেই চলে আসে ডালা-কুলার কথা। আর এই ডালা-কুলার তত্ত্বে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায় বর-কনের হলুদের তত্ত্ব। প্রতিটি ডালা-কুলার আলাদা আলাদা পাত্রের একেকটিতে হলুদ, মেহেদি, উপটান ও প্রদীপ থাকে। সাধারণত হলুদ এবং মেহেদি বেটে আলাদা পাত্রে নিয়ে কালার পেপারে মুড়ে ডালা-কুলায় সাজিয়ে তত্ত্বে পাঠানো হয়।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

 

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System