মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৮, ৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

এমপি হতে তৃণমূলের কাছে ছুটছেন যেসব নেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার ০৭:৩০ পিএম

এমপি হতে তৃণমূলের কাছে ছুটছেন যেসব নেতা

ঢাকা: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আর কয়েম মাস বাকী। এরই মধ্যে এমপি হতে সবাই (মনোনয়ন প্রত্যাশীরা) এখন গ্রাম-গঞ্জে দৌড়-ঝাপ শুরু করেছেন। তাদের লক্ষ একটাই, যেকোনো মূল্যে তৃণমূল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মনজয় করা। তাহলেই নিশ্চিত মিলবে সোনার হরিন নামক নৌকার টিকেট। পাড়ায়-মহলায় এখন চলছে ওঠান বৈঠক, আলোচনা সভা, কর্মীসভা ও শুভেচ্ছা বিনিময়। এতে মন্ত্রী-এমপিদের উপস্থিতিও নেহায়েত কম নয়। এলাকায় এলাকায় তারাও রীতিমতো গণসংযোগ করে চলেছেন। তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে নতুন করে সম্পর্ক ঝাঁলিয়েও নেয়া হচ্ছে। এসব অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে তারা জানান দিচ্ছেন, সামনে নির্বাচন। এবার তৈরি হতে হবে। নির্বাচনে আবারও নৌকা প্রতীকের পক্ষে বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে।

এদিকে ঢাকা থেকে নিজ এলাকায় উপস্থিত হয়ে ঝটিকা সফরে বের হবেন এমপিদের কেউ কেউ। এ ছাড়াও আগামী ঈদুল আযহার আগেই নিজ নিজ এলাকায় পোস্টার, বিলবোর্ড, ফেস্টুনে সয়লাব করেছেন নেতারা। গ্রামের মাঠে-ঘাটে কিংবা চা-স্টলে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু কে হচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী। ‘অমুক ভাই’ আজ এলাকায় গণসংযোগ করেছেন। অমুক ভাই এগিয়ে রয়েছেন ইত্যাদি নানা আলোচনা।

প্রসঙ্গত, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে কারো মুখ দেখে নয়, জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে প্রার্থী মনোনয়ন দিবেন দলীয় প্রধান। সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। যারা ভালো করবেন তারাই মনোনয়ন পাবেন। তৃণমূলে যাদের অবস্থা খারাপ, তাদের উন্নতি করার সুযোগ এখনও আছে বলে জানান তিনি। সম্প্রতি সংসদ ভবনে দলের সংসদীয় বৈঠকে দলীয় সভাপতির এমন হুসিয়ারীর পর পর তৃণমূলের মনজয়ে মাঠে নেমে পড়েন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। এরই ধারাবাহিকতায় অনুষ্ঠিতব্য ঈদুল বিতরের পরও মাঠে রয়েছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতা থেকে শুরু করে তৃণমূলের নেতারাও দলের উন্নয়নমূল কর্মকাণ্ড তুলে ধরে ভোটারদের দরবারে হাজির হচ্ছেন। তাদের পদচারনায় প্রতিনিয়তই মুখর হয়ে ওঠেছে গ্রাম-গঞ্জের হাট-বাজার। আড্ডা জমে ওঠেছে স্কুল-কলেজ ও রাস্তার পাশের চায়ের দোকানেও।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে নিয়মিত যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও নিজ নির্বাচনী এলাকা ঝালকাঠিতে কর্মীসভা করে যাচ্ছেন। এতে তুলে ধরছেন সরকারের উন্নয়নমূল কর্মকাণ্ড। উপদেষ্টা পরিষদের আরেক সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদও তার নির্বাচনী এলাকা ভোলায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন অতিথি হয়ে। দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান, কাজী জাফরউল্লাহ তার নির্বাচনী এলাকা ফরিদপুরে একাধিক মতবিনিময় ও আলোচনা সভায় অংশ নিচ্ছেন রীতিমতো। 

ফরিদপুর-১ আসন থেকে এবার নির্বাচন করবেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান। সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম তার নিজ নির্বাচনী এলাকা শরীয়তপুর চড়ে বেড়াচ্ছেন। তিনি ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি জনসভা করেছেন। ঐসব জনসভায় বর্তমান সরকারের উন্নয়নমুলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরছেন। চট্টগ্রাম-৯ আসন থেকে এবার মনোনয়ন চান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

বসে নেই অন্যান্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরাও। ঈদুল ফিতরে নিজ নিজ এলাকার নেতাকর্মী এবং অসহায় মানুষজনদের মাঝে লক্ষ লক্ষ টাকা শাড়ি-লুঙ্গি ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে কেউ কেউ আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। তৃণমূল নেতারাও তাদের (মনোনয়ন প্রত্যাশী) কর্মকাণ্ডে মহাখুশি। বিভিন্নস্থানে ছোট ছোট ওঠান বৈঠক ও আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে আগামী নির্বাচনে নৌকারপক্ষে ভোট চাইছেন। 

চাঁদপুর-৩ আসন থেকে মনোনয়ন চান রেদওয়ান খান বোরহান। তিনি নিজ এলাকায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের পাশে সর্বদায় থাকেন। এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে সাধ্যমতো সহযোগিতা করে তৃণমূলের মনজয় করেছেন। এলাকার ভোটাররা এবার এমপি হিসেবে এ আসনে তাকে চান। কিশোরগঞ্জ-২ আসনের মনোনয়ন চান পুলিশের সাবেক আইজিপি নুর মোহাম্মদ। তিনি এখন এলাকার নেতাকর্মীদের বেশি সময় দেন। যোগ দিচ্ছেন এলাকার বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে। 
পটুয়াখালী-১ আসন থেকে তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, নেত্রকোনা-৩ আসন থেকে মনোনয়ন চান আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, চট্টগ্রাম-১৫ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, নারায়নগঞ্জ-৩আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত। এবার নিজ এলাকায় (সোনারগাও) গরীব-দু:খি এবং দলের নেতাকর্মীদের সিার্বিকভাবে সহযোগি করে আসছেন। প্রতিদিন কোথায়ও না কোথায়ও সরকারের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরে আলোচনা কিংবা মতবিনিময় সভা করছেন। 

ঢাকা-৫ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী আলহাজ্ব মশিউর রহমান মোলা সজল। সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি নিজ সংসদীয় আসনকে শিক্ষা জোন হিসেবে গড়ে তুলার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন নিরন্তর। নরসিংদী-৫ থেকে কেন্দ্রীয় সদস্য এডভোকেট এবিএম রিয়াজুল কবীর কাউসার, কিশোরগঞ্জ-৫ থেকে অজয় কর খোকন, ঢাকা-৬ চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু,ঢাকা-৮আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী দক্ষিন সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে এবার মনোনয়ন চান কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সম্পাদক এডভোকেট রানু আখতার। 

ফরিদপুর-২ আসন চষেবেড়াচ্ছেন সিনিয়র সাংবাদিক লায়েকুজ্জামান। তিনি প্রতিদিন ঐ আসনের নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় ও আলোচনা সভা করে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরছেন। একইসাথে এলাকার পুরানো কর্মীদের সক্রিয় করছেন। কুষ্টিয়া-৪ আসনে (খোকসা ও কুমারখালী) আসনে এবার মনোনয়ন পেতে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেনখোকসা শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বিটু। জয়পুরহাট-২ আসন থেকে এবারও নির্বাচন করবেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন। তিনি এলাকাবাসির উন্নয়নে কাজ করছেন এবং সরকারের উন্নয়নমুলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরছেন। 

ঠাকুরগাও-৩ আসনে (রানীশংকৈল-পীরগঞ্জ) মনোনয়ন পেতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন সুজাউল করিম চৌধুরী বাবুল, যশোর-৫ আসন থেকে মনোনয়ন পেতে তৃণমূলে কাজ করে যাচ্ছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম ইউনুস আকবর। এসব সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ঘুম নেই। দিন-রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তৃণমূলকে খুশি করতে। যে-যা চাচ্ছেন তা দিয়েই মনজয়ের চেষ্টা তাদের।

সোনালীনিউজ/জেএ