• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮
abc constructions

ঘরে বসে বিও অ্যাকাউন্ট খুলবেন যেভাবে


নিজস্ব প্রতিবেদক ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১, ০২:৩৪ পিএম
ঘরে বসে বিও অ্যাকাউন্ট খুলবেন যেভাবে

ফাইল ফটো

ঢাকা : মাত্র ৪৫০ টাকা অনলাইনে বিও অ্যাকাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে ফি জমা দিতে হবে। অর্থাৎ মাত্র ৪৫০ টাকা দিয়ে ঘরে বসে তাদের পছন্দের ব্রোকারেজ হাউসে বিও অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন বিনিয়োগকারীরা। 

এ বিষয়ে সিডিবিএলএর ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস বিভাগের প্রধান রাকিবুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বর্তমানে বিও অ্যাকাউন্ট খুলতে যেসব কাগজপত্র লাগে, তার সবই লাগবে অনলাইনের ক্ষেত্রেও। বিও অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য যে ফি নির্ধারণ করা হয়েছে, সেটি জমা করা যাবে আর্থিক লেনদেনের যেকোনো গেটওয়ে ব্যবহার করে।

একজন বিনিয়োগকারীকে নির্ধারিত ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের মোবাইল নম্বর ও ই-মেইল দিয়ে বিও অ্যাকাউন্ট খোলার প্রথম ধাপে লগ–ইন করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে ওই বিনিয়োগকারীর মোবাইল ও ই-মেইলে একটি ৪ ডিজিটের গোপন পাসওয়ার্ড চলে যাবে। সেটি একবারই ব্যবহার করা যাবে, এ কারণে সেটি ওটিপি বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড হিসেবে পরিচিত। ওই পাসওয়ার্ড দিয়ে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে ওই একজন বিনিয়োগকারীকে।

এরপর বিনিয়োগকারীকে ডিপি ও বিও টাইপ নির্বাচন করতে হবে। এখান থেকে Choose DP থেকে নিজের পছন্দের ব্রোকাজের হাউজ বেছে নিতে পরবেন। Bo option এ গিয়ে নিজের নতুন না পুরো আইডির অ্যাকাউন্টের সঙ্গে লিংক করবেন সেই অপশন দেয়া থাকবে। পরের ধাপে Residency থেকে বাংলাদেশি না বিদেশ সেই অপশন নির্বাচন করতে হবে। এরপর BO Typ থেকে স্বতন্ত্র বা জয়েন্ট নির্বাচন করে next চেপে বেরিয়ে যান।

কয়েকটি ধাপে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের স্মার্ট কার্ডের ১০ ডিজিটের নম্বর অথবা জাতীয় পরিচয়পত্রে ১৭ ডিজিটের নাম্বার প্রদান করুন, এখানে উল্লেখ্য কারো ১৩ ডিজিটের নাম্বার হলো তার পূর্বে জন্ম সালের ৪টি নাম্বার যুক্ত করে ১৭টি ডিজিট করতে হবে। ব্যাংক হিসাব নাম্বার, ব্যাংক চেকের স্ক্যান কপি, বিনিয়োগকারীর ছবি, স্বাক্ষরের স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে।

ওই আবেদন চলে যাবে বিনিয়োগকারীর পছন্দের ব্রোকারেজ হাউসে। ব্রোকারেজ হাউসের পক্ষ থেকে যাচাই-বাছাইয়ের পর সব ঠিকঠাক থাকলে সেই আবেদন গ্রহণ করা হবে। তখন স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে একটি নোটিফিকেশন চলে যাবে বিনিয়োগকারীর মোবাইল ও ই–মেইলে। সেই নোটিফিকেশন পাওয়ার পর বিনিয়োগকারীকে বিও ফি জমা দিতে হবে। বিও ফি জমা হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট ব্রোকারেজ হাউস সিডিবিএলের সিস্টেমে তা আপলোড করে দেবে। আর বিনিয়োগকারী মোবাইল ও ই-মেইলে পেয়ে যাবেন ‘সাকসেসফুল’ বার্তা।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নিয়ন্ত্রক সংস্থা নতুন নিয়ম করেছে, আইপিও আবেদন করতে হলে সেকেন্ডারি বাজারে ন্যূনতম ২০ হাজার টাকা বিনিয়োগ থাকতে হবে। চলতি বছরের এপ্রিল থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। নতুন এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে কিছু বিও অ্যাকাউন্ট কমে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। বর্তমানে দেশের শেয়ারবাজারে বিও অ্যাকাউন্টের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় পৌনে ২৬ লাখ। যেগুলোর মধ্যে সোয়া ৭ লাখ বিও অ্যাকাউন্টের কোনো শেয়ার নেই। সাধারণত এসব বিও অ্যাকাউন্টের বড় অংশ শুধু আইপিও আবেদনে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। 

এই পরিস্থিতিতে এখন থেকে ঘরে বসে বিও অ্যাকাউন্ট খোলার সুবিধা চালু হলো এবং বাজার ঊর্ধ্বমুখী থাকলে তাতে নতুন করে কিছু বিও অ্যাকাউন্টের সংখ্যা বাড়তে পারে।

যেভাবে অনলাইনে বিও অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে সিডিবিএলের (www.cdbl.com.bd/bo) ওয়েব সাইটে টিউটোরিয়াল ভিডিও দেয়া আছে।

বিস্তারিত জানতে ভিডিওটি দেখুন

সোনালীনিউজ/এএস
 

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School