• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

প্রবীণ সাংবাদিকদের ভাতা চালুর দাবিতে মানববন্ধন


নিজস্ব প্রতিবেদক সেপ্টেম্বর ৭, ২০২২, ০৩:৩২ পিএম
প্রবীণ সাংবাদিকদের ভাতা চালুর দাবিতে মানববন্ধন

ঢাকা: গণমাধ্যমকর্মী আইন-২০২২ এর আইনে প্রবীণ (ষাটোর্ধ) সাংবাদিকদের জন্য মাসিক ভাতা চালু, চাকরির বয়সসীমা উল্লেখ ও সাংবাদিকদের স্বার্থ বিরোধী সব ধারা বাতিলের দাবি জানানো হয়েছে। এই দাবিতে মানববন্ধন করেছে প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিকরা।

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গনে প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম করম আলী বলেন, যখনই সাংবাদিকরা তাদের অধিকার নিয়ে কথা বলে, তখনই আমাদের ওপর নির্মমভাবে নানা আইন নেমে আসে। গণমাধ্যমকর্মী আইন-২০২২ এর ধারা সাংবাদিকদের স্বার্থ বিরোধী। আমরা এই আইনের ধারাগুলোর সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করতে পারছি না।

তিনি বলেন, আজকের এই মানববন্ধন থেকে দাবি জানাচ্ছি যে, সরকার ও সংবাদপত্রের কলাকুশলীরা মিলে সমঝোতা করে এমন ধারা সংযুক্ত করুন যেখানে গণমাধ্যমকর্মী ও সংবাদপত্র উভয়েরই কল্যাণ হবে। নতুন আইনে প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিকদের জন্য কোনো ধারাই সংযুক্ত নেই।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে বিভিন্ন ভাতা প্রচলন করেছেন। আমরা আমাদের কর্মাহত ষাটোর্ধ সাংবাদিকদের জন্য মাসিক ভাতা চালুর দাবি করছি।

সাধারণ সম্পাদক শিকদার আবদুস সালাম বলেন, জাতীয় সংসদে উত্থাপিত ‘গণমাধ্যমকর্মী (চাকরি শর্তাবলী) আইন-২০২২’-এ যেসব ধারা সংযোজন করা হয়েছে, তার কোনো ধারাতেই প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিকদের বিষয়টি উল্লেখ নেই। চাকরি শুরু ১৮ বছর বয়সে, শেষ হবে কবে, চাকরি শেষে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো পেনশন ও অবসর ভাতা দিচ্ছে। বৃদ্ধ বয়সে আরামে আয়শে তাদের জীবন কাটছে; কিন্তু সাংবাদিকদের? ‘গণমাধ্যমকর্মী আইন-২০২২’ এর ধারায় সুস্পষ্টভাবে প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিকদের সম্মানজনক মাসিক ভাতার বিষয়টি উল্লেখ করতে হবে।

তিনি বলেন, সাংবাদিকদের ৬০ বছর চাকরিসীমা পার হওয়ার আগেই খালি হাতে অফিস থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে। বৃদ্ধ বয়সে মামলা করেও টাকা মিলছে না। যখন অর্থের অভাবে, বিনা চিকিৎসায় ধুঁকে ধুঁকে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন, তখন কেউ খোঁজও নিচ্ছেন না। প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিষয়টি বিবেচিত হলে আমরা মানসিকভাবে স্বস্তি ও বেঁচে থাকার প্রেরণা পেতে পারি।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক আতিকুল ইসলাম, অ্যাড. কামরুল ইসলামসহ প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিকরা।

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School