• ঢাকা
  • সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১, ৬ বৈশাখ ১৪২৮
abc constructions

শুধু নারীরা নয়, সমগ্র দেশের মানুষ আজ নির্যাতিত


নিজস্ব প্রতিবেদক মার্চ ৮, ২০২১, ০৪:৩৫ পিএম
শুধু নারীরা নয়, সমগ্র দেশের মানুষ আজ নির্যাতিত

ফাইল ছবি

ঢাকা : বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আন্দোলনের মাধ্যমে বর্তমান সরকারকে হটাতে না পারলে আলোকিত বাংলাদেশ গড়া সম্ভব হবে না। নারীসহ দেশের সবাই এখন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

সোমবার (৮ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে মহিলা দল আয়োজিত শোভাযাত্রার আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজ নারীরা বন্দি রয়েছেন। এখানে যাঁরা নারীদের অধিকারের বিষয়ে সবচেয়ে বেশি দায়িত্ব পালন করেছেন, তাঁদের সবচেয়ে বেশি অবহেলা করা হয়।

সংক্ষিপ্ত সভা শেষে মহিলা দলের নারী দিবসের শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রাটি বিএনপির কার্যালয় থেকে কাকরাইল মোড় হয়ে কেন্দ্রীয় অফিসের সামনে এসে শেষ হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজ শুধু নারীরা নয়, সমগ্র বাংলাদেশের মানুষ নির্যাতিত। তারা বন্দি। তারা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছে। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালিত হচ্ছে, সেখানে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে আমাদের যারা অধিকারের জন্য আন্দোলন করছে—আমাদের ছাত্রনেতা, লেখক, সাংবাদিকদের ওপর নির্মম নির্যাতন চলছে। আজ দুর্ভাগ্য এই জাতির—(স্বাধীনতার) ৫০ বছর পরেও আমরা বলতে পারি না যে, আমরা স্বাধীন। মা-বোনেরা নিরাপদে চলাফেরা করতে পারেন না। তাঁরাও বলতে পারেন না যে, তাঁরা স্বাধীন।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সবার স্বাধীনতা হরণ করে নিয়েছে। বাক্‌স্বাধীনতাকে হরণ করেছে, মৌলিক ও গণতান্ত্রিক স্বাধীনতাকে হরণ করে নিয়েছে। সুতরাং তখনই নারীদের অধিকার আদায় হবে, তখনই নারীদের অধিকারগুলো সংরক্ষিত করা যাবে, যখন সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশে একটি গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা হবে। পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ও অন্ধকার থেকে বেরিয়ে এসে সবাইকে আলোতে আসতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, এই দিনে স্মরণ করতে চাই বেগম রোকেয়াকে। যিনি এই উপমহাদেশে, বিশেষ করে বাংলাদেশে নারীদের উন্নয়নের জন্য, তাদের অন্ধকার থেকে আলোতে নিয়ে আসার জন্য প্রকৃত ভূমিকা পালন করেছিলেন। এরপরই যে নারীকে, যে নারী নেত্রীকে সবচেয়ে বেশি শ্রদ্ধা জানাতে চাই তিনি খালেদা জিয়া। উনি বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য সবচেয়ে বড় কাজটি করেছিলেন। মেয়েদের বিনা বেতনে গ্রাজুয়েশনের ব্যবস্থা করে দিয়েছিল। এটা খালেদা জিয়ার একটা যুগান্তকারী পদক্ষেপ ছিল।

বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, সমগ্র পৃথিবীতে নারীদের যে অধিকার, সেই অধিকারকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য এবং সেই অধিকারগুলোকে সুসংগঠিত করার জন্য সব মানুষকেই সচেতনভাবে দায়িত্ব পালন করতে হয়। যারা দেশ পরিচালনা করছেন, তাঁদের সবচেয়ে বড় দায়িত্ব পালন করতে হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্য বাংলাদেশের, এখানে যাঁরা নারীদের অধিকারের বিষয়ে সবচেয়ে বেশি দায়িত্ব পালন করেছেন তাঁদের সবচেয়ে বেশি অবহেলা করা হয়।

এদিন সংগঠনের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সঞ্চালনায় সভায় বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নূরে আরা সাফা প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School