• ঢাকা
  • শনিবার, ২৫ জুন, ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯
শিক্ষক নিয়োগ

জুনেই চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি চান প্রার্থীরা


নিজস্ব প্রতিবেদক মে ১৭, ২০২২, ০২:২৬ পিএম
জুনেই চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি চান প্রার্থীরা

ঢাকা : আগামী জুন মাসেই শিক্ষক নিয়োগের চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের দাবি জানিয়েছেন নিয়োগ প্রত্যাশীরা। তারা দুই বছর আগের ব্যাকডেটে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সম্প্রতি ৩৫ বছর উত্তীর্ণ প্রার্থীদের চতুর্থ ধাপের শিক্ষক নিয়োগের আবেদনের সুযোগ দেয়া দাবি জানিয়েছেন।

একইসঙ্গে চলমান শিক্ষক নিয়োগের শূন্যপদের তথ্য দিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রোফাইল হালনাগাদ ও ই-রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ার সময় না বাড়াতে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) কর্মকর্তাদের কাছে দাবি জানিয়েছেন।

সোমবার (১৬ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর ইস্কাটনে এনটিআরসিএ অফিসের সামনে মানববন্ধন করে এসব দাবি জানান প্রার্থীরা। ‘চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রত্যাশী শিক্ষক ফোরাম’ নামে একটি সংগঠনের ব্যানারে নিবন্ধিত প্রার্থীরা এ মানববন্ধনে অংশ নেন।

মানববন্ধনে প্রার্থীরা বলেন, শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ১৬তম নিবন্ধনধারীরা সবচেয়ে বেশি বঞ্চিত হয়েছি। অন্যান্য নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা এক থেকে তিনটি গণবিজ্ঞপ্তি পেয়েছে। কিন্তু ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে পরীক্ষা নেয়ার পরও চূড়ান্ত ফল পেয়েছি ২০২১ খ্রিষ্টাব্দে। আমরা কোনো নিয়োগের পুর্ণাঙ্গ গণবিজ্ঞপ্তি পাইনি। অনেকের বয়স শেষ হয়ে গেছে, অনেকের শেষ হওয়ার পথে। এনটিআরসিএ আমাদের আশ্বাস দিয়েছিলো, কিন্তু তারা এখনও গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে পারেনি।

প্রার্থীরা আরও বলেন, প্রতিদিনই কোন না কোন প্রার্থীর বয়স ৩৫ বছর পার হয়ে যাচ্ছে। কষ্ট করে অর্জন করা নিবন্ধন সনদ এখন মূল্যহীন হয়ে পড়ছে। ব্যাকডেট না পেলে হাজার হাজার প্রার্থী গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনই করতে পারবেন না। ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রার্থীদের অপূরণীয় ক্ষতি থেকে বাঁচাতে এনটিআরসিএ কর্তৃপক্ষ ২ বছরের ব্যাকডেটসহ জুন মাসের মধ্যে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবেন, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

পরে প্রার্থীদের কয়েকজন প্রতিনিধি এনটিআরসিএর কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করেন। এসময় এনটিআরসিএর সচিব ওয়ায়দুর রহমানকে নিজেদের দাবি দাওয়া উল্লেখ করে আবেদন দেয়া হয়েছে বলে জানান তারা। ফিরে এসে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রত্যাশীদের নেতা এম এ আলম দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, কর্মকর্তাদের আমরা আমাদের দাবি জানিয়েছি। তারা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়ে আশ্বস্ত করেছেন। তবে, কবে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে এ বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে জানানি। আমরা দুই দফা দাবি জানিয়েছি, সেগুলো হলো, ই-রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ না বাড়িয়ে আগামী জুন মাসেই ই-রিকুইজিশন সম্পন্ন করা এবং জুন মাসের মধ্যেই চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা।

এদিকে এনটিআরসিএর কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আগামী ৩১ মে পর্যন্ত  শিক্ষক নিয়োগের শূন্যপদের তথ্য দিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রোফাইল হালনাগাদ ও ই-রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া চলবে। এরপর শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহ শুরু হবে। প্রচলিতভাবে একমাস শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহ করা হয়। এসব প্রক্রিয়া শেষে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তা। এদিকে কবে নাগাদ শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে সে বিষয়ে সুস্পষ্ট মন্তব্য করতে চাচ্ছেন না কর্মকর্তারা। কর্মকর্তাদের কেউ কেউ জুলাইয়ে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আশা জানিয়েছেন। যদিও প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ কর্মকর্তারা বলছেন, পর্যায়ক্রমে সব প্রস্তুতি শেষ হলেই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System