• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭

অটোচালকের ছেলে থেকে বিএমডব্লিউর মালিক


ক্রীড়া ডেস্ক জানুয়ারি ২৩, ২০২১, ০২:৫৭ পিএম
অটোচালকের ছেলে থেকে বিএমডব্লিউর মালিক

ছবি : ইন্টারনেট

ঢাকা : বাবাকে শেষ বিদায় জানাতে দেশে ফেরেননি। অস্ট্রেলিয়ায় রয়ে গিয়েছিলেন। হায়দরাবাদের অত্যন্ত দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে এসেছেন ভারতের এই পেসার। বাবা মোহম্মদ গাউস ছিলেন অটোচালক। কিন্তু ছেলের ক্রিকেট খেলার স্বপ্নে কোনওদিন বাধা দেননি। বরং মুখ্য ভূমিকা নিয়েছেন।

তিনি মোহম্মদ সিরাজ। হায়দরাবাদের এক অটোচালকের ছেলে। যার দু’চোখে ছিল ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন। সেই স্বপ্নকে আজ বাস্তবে রূপ দিয়ে মালিক হয়ে গেলেন বিএমডব্লিউর। অস্ট্রেলিয়ায় ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজের ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরেছেন দিন দুইয়েক হল। এর মধ্যেই নিজেকে দামি গাড়ি উপহার দিলেন সিরাজ। 

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) ইনস্টাগ্রামে দুটি ভিডিও পোস্ট করেন সিরাজ। সেখানেই নতুন গাড়িতে চড়তে দেখা যায় তাকে। হায়দরাবাদের রাস্তায় সেই গাড়ি নিয়ে ইতিমধ্যে ঘুরেও এসেছেন সিরাজ।

সিরাজও সেই আস্থার প্রতি অবিচল থেকে ধীরে ধীরে রাজ্য, আইপিএল এবং জাতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছেন, পেয়েছেন সাফল্য। তবে অস্ট্রেলিয়ায় ছেলের সাফল্য দেখতে পাননি বাবা। নভেম্বরেই তিনি ইন্তিকাল করেন। দেশে ফিরেই পরিবারে না ফিরে প্রথমে বাবার কবর জিয়ারত করেন সিরাজ।

বৃহস্পতিবার সিরাজ বললেন, ‘‌হায়দরাবাদ এসেই বিমানবন্দর থেকে সোজা কবরস্থানে চলে গিয়েছিলাম। বাবাকে শ্রদ্ধা জানিয়ে বাড়ি আসি। মা আমাকে দেখেই কাঁদতে শুরু করে। আমি সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করি।’‌  

প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়া সফর করতে এসেই পেয়েছিলেন বাবার মৃত্যু সংবাদ। এমন অবস্থায় দেশে ফিরতে পারেননি। করোনাকালে কোয়ারেন্টিনের কঠিন সময়ে একবার দেশে ফেরা মানেই সিরিজ থেকে ছিঁটকে পড়া।

তাই বুকে পাথর বেঁধেছিলেন সিরাজ, বাবাকে শেষ বিদায় জানাতে দেশে ফেরেননি। অস্ট্রেলিয়ায় রয়ে গিয়েছিলেন। বোর্ডার-গাভাস্কার সিরিজে ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ১৩ উইকেট পেয়েছেন সিরাজ। সেই সঙ্গে প্রথমবারের মতো ইনিংসে পাঁচ উইকেট প্রাপ্তির স্বাদ পেয়েছেন এই পেস বোলার। 

সোনালীনিউজ/এমএএইচ